রূপচর্চায় টমেটো ব্যবহারের কিছু ঘরোয়া টিপস – ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় কিভাবে টমেটো ব্যবহার করবেন

টমেটোতে উচ্চ মাত্রায় লিকোপিন (Lycopene) থাকে যা ত্বকের জন্য দারুনভাবে উপকারী। রোজকার খাদ্যাভাসে টমেটো বা টমেটোযুক্ত খাবার খেলে ত্বকের অনেক উপকার হয়। টমেটো আমাদের ত্বককে বেশি মাত্রায় অক্সিজেন (Oxygen) গ্রহণ করতে সাহায্য করে যা আমাদের বার্ধক্যজনিত সমস্যা দূর করে এবং ত্বকের বলিরেখাও কমায়। এটি ত্বককে ফর্সা করে এবং সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির (UV Ray) প্রভাবে হওয়া সানট্যান (suntan) দূর করতেও সাহায্য করে। শুধুমাত্র টমেটোর টুকরো নিয়ে মুখে ঘষলেও দারুন উপকার পাওয়া যায়। কোনরকম বারটি খরচা ছাড়াই আপনি নিজের ঘরে বসেই এটাব্যবহার করতে পারেন। আজই টমেটো ব্যবহার করুন এবং অসাধারণ ত্বক পান।

ত্বককে স্বাস্থ্যকর ও উজ্জ্বল রাখার জন্য টমেটোর কোনো বিকল্প নেই। টমেটোর রস বা তমাতর খোসা ব্যবহার করে অনেক ধরনের মাস্ক(mask), স্ক্রাব (scrub) এবং প্যাক (pack) তৈরী করা হয়।

টমেটো হলো একটি সাইট্রাস (citrous) ফল। এতে ভিটামিন সি (vitamin C), ভিটামিন এ (vitamin A) এবং এন্টিঅক্সিডেন্ট (antioxidant) থাকে। ত্বকের উপকারে টমেটো বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়। ব্রণ ও ফুসকুড়ি সরাতেও টমেটো খুব ভালো কাজ করে। টমেটো আমাদের ত্বকের খোলা রোমকূপগুলিকে ছোট করে যার ফলে ময়লা জমতে পারেনা। টমেটো ত্বক পরিষ্কার করতে এবং টমেটোর টুকরো মুখের স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা হয়। ঘরোয়া রূপচর্চায় টমেটো প্রচুর পরিমানে ব্যবহার করা হয়।

টমেটো দিয়ে কিছু ঘরোয়া রূপচর্চার টিপস (Homemade beauty tips with tomato)

ব্রনর জন্য টমেটো (Tomato for acne)

একটি সতেজ টমেটো নিয়ে দুই টুকরো করুন।একটি টুকরো নিয়ে আসতে আসতে বৃত্তাকার গতিতে (circular motion) মুখে ঘষতে থাকুন। টমেটোতে থাকা ভিটামিন সি এবং ভিটামিন এ ব্রণ সারাতে সাহায্য করে। একইভাবে টমেটোর রস মুখে লাগলেও একই ফল পাওয়া যায়। টমেটো লাগানোর ১০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে নিন। উপযুক্ত ফল পেতে প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৩ বার এই পদ্ধতি মেনে চলুন।

স্ক্রাব হিসেবে টমেটো (Tomato as the scrub)

একটি টমেটো নিয়ে দুই টুকরো করুন। একটি টুকরো নিয়ে এক বাটি চিনিতে ডুবিয়ে সেটি আসতে আসতে মুখে ঘষুন। এটি ত্বকের প্রাকৃতিক স্ক্রাবরূপে কাজ করে ও মরা কোষ তুলে ত্বককে করে তোলে উজ্জ্বল।

খোলা রোমকূপের জন্য টমেটো (Tomato for the open pores)

একটি বাটিতে ২ টেবিলচামচ টমেটোর রস ও ২ টেবিলচামচ পাতিলেবুর রস নিন।একটি তুলোর বল এই মিশ্রনে ডুবিয়ে মুখের রোমকূপের উপর আসতে আসতে ঘষতে থাকুন। ১০-১৫ মিনিট পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সানবার্ন দূর করতে টমেটো (Tomato for sunburns)

একটি ব্লেন্ডারে একটি টমেটো নিয়ে তার সাথে আধ কাপ দই মেশান। ভালো করে দুটিকে মেশান। এইবার ত্বকের যেসব জায়গায়ে সানবার্ন হয়েছে সেখানে এই পেস্ট (paste) লাগান।১০-১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য টমেটো (Tomato for glowing skin)

২ টেবিলচামচ টমেটোর রস ও ২ টেবিলচামচ মধু নিয়ে ভালো করে মেশান। এই মিশ্রন মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট রাখুন এবং তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য টমেটো (Tomato for oily skin)

২ টেবিলচামচ টমেটোর রস এবং ২ টেবিলচামচ শশার রস নিয়ে ভালো করে মেশান। তৈলাক্ত ত্বকের উপর এই মিশ্রন লাগান। ১০ মিনিট রেখে মুখ ধুয়ে নিন। টমেটোতে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট লিকোপিন ত্বকের রম্কুপের উপর কাজ করে ত্বককে ভিতর থেকে পরিষ্কার করে।

টমেটো দিয়ে তৈরী কিছু মাস্ক এবং প্যাক (Packs and masks made with tomato)

ওটমিল প্যাক এবং টমেটো (Oatmeal pack and tomato): টমেটোর কোয়া, দই এবং ওটমিল মিশিয়ে আপনি বানাতে পারেন একটি অসাধারণ ব্লিচ (bleach)। এই তিনটি উপাদান আপনার ত্বকের মরা ও শুকনো চামড়া তুলে ফেলে, ত্বকের দাগ্ছপ দূর করে এবং আপনাকে দেয় ফর্সা ও সুন্দর ত্বক।
পাতিলেবুর রস এবং টমেটো (Lemon juice and tomato): রোদে পুরে যাওয়া জায়গার জন্য বা ত্বকের সানট্যান দূর করার জন্য এই মিশ্রন খুবই উপকারী। তমাতর সাথে কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস মিশিয়ে সানট্যান পরা জায়গায় লাগান এবং শুকোতে দিন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
শশা ও টমেটোর মাস্ক (Cucumber and tomato mask): ট্যান দূর করতে শশা ও টমেটোর মাস্ক খুব ভালো কাজ করে। টমেটো ও শশার রস একসাথে মিশিয়ে ট্যান পরা জায়গায় লাগান। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।
অলিভ অয়েল ও টমেটো (Olive oil and tomato): টমেটো ও অলিভ অয়েল দিয়ে একটি মিশ্রন বানান এবং এটি মুখে লাগান। ২০ মিনিট রেখে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
টমেটো ও চিনির স্ক্রাব (Tomato and sugar scrub helps): ত্বকের ব্রণ ও ব্ল্যাকহেডস (blackheads) দূর করে। অর্ধেক টমেটোর উপর কিছু চিনি লাগিয়ে নিলে এটি স্ক্রাব হিসেবে খুব ভালোভাবে ব্যবহার করা যায়। চিনি লাগানো টমেটো দিয়ে মুখে বৃত্তাকার গতিতে ১০ মিনিট ঘষুন ও তারপর ধুয়ে ফেলুন।
চন্দনকাঠ ও টমেটো (Sandalwood and tomato): এই মাস্ক ত্বকের রং হালকা করতে এবং ত্বককে উজ্জ্বল ও চকচকে করতে সাহায্য করে। চন্দনগুড়ো, তমাতর রস ও পাতিলেবুর রস একসাথে মিশিয়ে এই মাস্ক তৈরী করুন।
পাতিলেবু ও টমেটো (Lemon and tomato): এই মাস্কত্বকের বার্ধক্যের ছাপ দূর করে। এই প্যাক ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে এবং ব্রনর হাত থেকে রক্ষা করে। টমেটো ও পাতিলেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগান।শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।
বাটারমিল্ক ও টমেটোর রস (Buttermilk and tomato juice): সানবার্ন দূর করতে খুবই উপকারী। এটি ত্বককে ঠান্ডা রাখে ও উজ্জ্বল করে তোলে।
মধু ও টমেটোর রস (Honey and tomato juice): এই মাস্ক ত্বককে ফর্সা বানায় এবং ত্বককে করে তোলে উজ্জ্বল ও মসৃন।

প্রয়োজনীয় রূপচর্চার উপকরণ বানানোর জন্য টমেটো খুবই ভালো কাজ করে।টমেটো দিয়ে নানান ধরনের ফেসপ্যাক ও ফেসমাস্ক বানানো যায়। মুখে সানবার্ন হলে শুধুমাত্র মুখে টমেটো ঘষে সেটি কমানো যায়। আপনাকে শুধু একটু তমাতর রস নিয়ে মুখে লাগাতে হবে। কিছুক্ষণ রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। টমেটোর সাথে অন্যান্য ঘরোয়া উপকরণ মিশিয়েও আপনি বিভিন্ন রকমের রূপচর্চার প্যাক বা মাস্ক বানাতে পারেন। আসুন দেখি টমেটোর কিছু ঘরোয়া টিপস।

ত্বকের সমস্যা দূর করতে টমেটো (Use of tomatoes to remove skin problems)

টমেটো ও মুলতানি মাটি (Tomato and multanimitti)

একটি টমেটোর টুকরো নিয়ে তার রস বের করে নিন।এটি একটি পাত্রে নিয়ে এর সাথে ২ চামচ মুলতানি মাটি মেশান।ভালো করে দুটি উপকরণ মেশান যাতে কোনো ডেলা না হয়ে থাকে। এইবার এই প্যাক সারা মুখে ভালো করে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট শুকোতে দিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক আপনার ত্বকে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা নিয়ে আসে।

টমেটো ও ভিনিগার (Tomato and vinegar)

আপনার ত্বককে পরিষ্কার ও আকর্ষনীয় করে তোলার জন্য আরেকটি সহজ টিপস হলো টমেটো ও ভিনিগার। একটি পাত্রে এক চামচ ভিনিগার নিয়ে তাতে এক চামচ তমাতর কোয়া মেশান। এই মিশ্রণ আপনার ত্বকে ভালো করে লাগান।ভিনিগারের অ্যাসিডিক (acidic) গুন ত্বকের দাগ ছোপ দূর করতে সাহায্য করে। টমেটো টক হওয়ায় এতেও অ্যাসিডিক গুন থাকে যা ত্বকের কালো ছোপ দূর করে।

টমেটো ও কলা (Tomato and banana)

কলে ত্বকের জন্য উপকারী সব রকম খনিজ পদার্থ (mineral) থাকে। আপনার ত্বককে আরো বেশি স্থিথিস্থাপক (elastic)ও যৌবনপূর্ণ করতে টমেটোরও কোনো বিকল্প নেই। অর্ধেক কলা চটকে নিয়ে তার সাথে কিছুটা টমেটোর রস মেশান। আপনি চাইলে এর সাথে কিছু মধুও মেশাতে পারেন। ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগান। এটি ব্যবহার করলে আপনি অবশ্যই ভালো ফল পাবেন।